রাজগঞ্জের ঝাঁপায় কৃষকেরা ব্যস্ত সময় পার করছে বোরো ধান ও সবজি চাষে

0
351

উত্তম চক্তবর্তী : আমন ধান কাঁটা শেষ, উঠানেও তোলা শেষ । ধূঁ-ধূঁ ফাকা বিল ও মাঠ । তার মাঝে যেখানে, খাল-পুকুর আছে সেখানে চাষ হচ্ছে বোরো ধানে আবাদ । যশোরের মনিরামপুর উপজেলার রাজগঞ্জের ঝাঁপা ইউনিয়নের কৃষকেরা এখন ব্যস্ত সময় পার করছে বোরো চাষে । সময় বদলের সাথে সাথে বদলে যাচ্ছে মানুষের চিন্তা-ভাবনা । তাই বীজতলা প্রযুক্তির ছোঁয়ায় বদলাছে কৃষকের ধারনা । বিশেষ করে প্রযুক্তির ছোয়ায় প্রতিনিয়ত আমূল্য বদলে যাচ্ছে এখানকার কৃষিতে । তার মাঝে আবার জাতীয় কৃষি প্রযুক্তি প্রোগ্রাম ফেজ-২ প্রকল্পের আওতায় ঘেরে আইলে শীতকালীন সবজি চাষ করছে । দেখা যায়, বীজতলা, সবজির খেত প্রদর্শনী খামার । ফলে শীতকালীন সবজিতে মনোরম এ সকল খেত । সরেজমিনে উপজেলার রাজগঞ্জের ঝাঁপা ইউনিয়ন ঘুরে দেখা যায়, কৃষকদের বোরো চাষে ব্যস্ত সময় পার করতে । আবার ঘেরের আইলে সবজি চাষসহ বসত বাড়ির আঙ্গীনায় ছোট ছোট সবজির খেতও চোখে পড়ে ।
শীতকালীন সবজি চাষ করেছে ঝাঁপা গ্রামের এক কৃষক তিনি জানায়, বেগুন, টমেটো চাষ করেছি জমিতে । এ পর্যন্ত টমেটো বিক্রয় করেছি বিশ হাজার টাকার । আরও বিক্রয় করতে পারব। পশ্চিমপাড়া গ্রামের এক কৃষক বলেন, সবজি চাষ করে সফল হয়েছি ।
মনিরামপুর উপজেলার ঝাঁপা ইউনিয়নের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা পলাশ সরকার জানান, লক্ষমাত্র ২৫০০হেক্টর জমিতে বোরো ধান আবাদ হতে পারে। ৬৫ হেক্টর শীতকালীন সবজি চাষ করা হয়েছে । তিনি আরও জানান, কৃষক যাতে বছর জুড়ে খেতে কাজ করে, দেশের উন্নয়ন করতে পারে, সে জন্য আমরা তাদেরকে সাহায্য করে যাচ্ছি । ঝাঁপা ইউনিয়ন সোনার ফসলে কৃষকের মন ভরে উঠুক এটাই আমাদের প্রত্যাশা।
উপজেলার ঝাঁপা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের অন্তত ২০/২৫ জন কৃষকের সাথে কথা হয়। তারা জানায়, তরমুজ ও সবজি চাষে সফল হয়েছি । বোরো চাষে উঠে-পড়ে লেগেছি । বীজতলা দেখতে ভালো লেগেছিল । তবে প্রাকৃতিক দূর্যোগ না হলে আমন ধানের মত বোরো ফসল পাবো ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here