রাজগঞ্জ বাজারে সবজির দাম আগুন নিম্ন আয়ের মানুষের নাভিশ্বাস

0
1161
উত্তম চক্তবর্তী- যশোরের মণিরামপুর উপজেলার রাজগঞ্জ বাজারে কাঁচা সবজিরসহ সব কিছুর দাম বেশি ৷ আরো কয়েক দফায় বেড়েছে ৷ বাজারে নিম্ন আয়ের মানুষের নাভিশ্বাস ৷ বাজারে আমদানি কম, তাই কাঁচা সবজির দাম ও বেশি জানালেন অনেক বিক্রেতা ৷ এদিকে, বাজারে কাঁচা সবজি ক্রয় করতে আসা অল্প আয়ের মানুষের মাথা ঘুরছে সবজির দম ফাঠানো দাম শুনে ৷ ২০০ শ’ টাকা নিয়ে বাজারে গেলে চাহিদার কিছুই পুরন হবেনা এমনই মন্তব্য অল্প আয়ের মানুষের ৷
তারা বলেন, চাকুরীজিবিদের কারনেও বাজারে পণ্যের দাম বাড়ছে ৷ কারন তাদের বেতন বেশি হওয়ায় জমিদারী ভাবটা বিরাজ করে সবসময় ৷ যেমন- বাজারে পণ্য ক্রয় করতে যেয়ে দরাদাম কম করা, বাজার শুরুর প্রথমার্ধে পণ্য ক্রয় করা ইত্যাদি ইত্যাদি ৷
গতকাল বাজার ঘুরে জানা গেছে, সিম প্রতিকেজি ১২০ টাকা ,  কাঁচা ঝাল প্রতিকেজি ২২০ টাকা , পটল প্রতিকেজি ৪০ টাকা , বাঁধাকপি প্রতিপিচ (সাইজ বুঝে দাম) ৪০ টাকা , বেগুন প্রতিকেজি ৬০ টাকা, কাঁচা কলা প্রতিকেজি ৩৫/৪০ টাকা, পেঁপে প্রতিকেজি ৩০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া প্রতিকেজি ৩৫ টাকা, কচুর মুখি প্রতিকেজি ৪০ টাকা, পুঁইশাক প্রতিকেজি ৩০ টাকা, করলা প্রতিকেজি ৫০ টাকা, ডাটা প্রতিকেজি ২৫ টাকা, উছতে প্রতিকেজি ৬০ টাকা, পুল্লা প্রতিকেজি ২৫/৩০ টাকা, লাউ প্রতি পিচ (সাইজ বুঝে দাম) ৪০ টাকার উপরে, ঢেড়স প্রতিকেজি ৬০ টাকা, বরবটি প্রতিকেজি ৬০ টাকা, ওল প্রতিকেজি ৩৫/৪০ টাকা, মান কচু প্রতিকেজি ৪০ টাকা, কচুরলতি ৩৫/৪০ টাকা, আলু প্রতিকেজি ২২ টাকা তাত্ত ভাল হচ্ছে না , পেঁয়াজ প্রতিকেজি ৬০ টাকা, রসুন প্রতিকেজি ১শ’ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে ৷ যা সাধারন মানুষ ক্রয় করতে প্রতিনিয়ত হিমশিম খাচ্ছে সারা দিন কাজ করে পাচ্ছে ২০০ টাকা ৷ কোনো কিছুই ৪০ টাকার নিচে বিক্রি হচ্ছে না । বাজারে চালের দামও চড়া । সবকিছুর দাম এমন হলে নিম্ন আয়ের মানুষের তিনবেলা খাওয়ায়ই নাভিশ্বাস ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here