১৭৮ জন ভিক্ষুককে ১৭ লক্ষ ১৪ হাজার টাকার সম্পদ বিতরণ ঝিকরগাছা উপজেলাকে ভিক্ষুকমুক্ত ঘোষণা

0
316

এম আর মাসুদ : যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলাকে আনুষ্ঠানিকভাবে ভিক্ষুকমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল সকালে উপজেলা পরিষদ চত্বর উন্মুক্ত মঞ্চে ভিক্ষুকদের কর্মসংস্থান ও পূনর্বাসন কর্মসূচির মাধ্যমে উপকরণ বিতরণ ও ভিক্ষুকমুক্ত ঘোষণা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবির এই ঘোষণা দেন। এসময় তিনি বলেন এর পরও যারা ভিক্ষাবৃত্তি করবে তাদেরকে ধরে জেল হাজতে দেওয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান সাবিরা সুলতানা, পৌর মেয়র আলহাজ মোস্তফা আনোয়ার পাশা জামাল, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা রশিদুর রহমান রশিদ, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মুছা মাহমুদ ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাহিদ আক্তার প্রমূখ। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম , শিমুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা শফি উদ্দীন আহমেদ, এই কর্মসূচির আহবায়ক ও উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসার ডা. প্রকাশ চন্দ্র দাশ, রজনীগন্ধা হিমাগারের ম্যানেজার শাহিনুজ্জামান ও বিআরডিবি কর্মকর্তা শিপ্রা রাণী ঘোষ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিকাশ চন্দ্র সরকার। অনুষ্ঠানে ১৭৮ জন ভিক্ষুককে পূনর্বাসনে ১৭ লক্ষ ১৪ হাজার টাকার সম্পদ বিতরণ করা হয়। সম্পদের মধ্যে রয়েছে ৭৩ জনকে ৬ একর খাস জমি বন্দোবস্তের দলিল হস্তান্তর, ১১ ইউনিয়নের ১১৮ জনকে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সদস্য করে এক বছরের সঞ্চয় বাবদ ২ লক্ষ ৮৩ হাজার ২০০ টাকা প্রদান, চাহিদা মোতাবেক ৯ জনকে ভ্যান, এক জনকে গরু, ১২৯ জনকে ছাগল, ৬ জনকে চা ও পানের দোকান, ২১ জনকে বাদাম, ডিম, চানাচুরের দোকান, ৪ জনকে হাঁস মুরগী পালন, এক জনকে মুদি দোকান ও ৬ জনকে কাঁঁচামাল, ফুটপাতের কাপড়, মনোহারি, ঝুড়িঢালা বোনা, আইসক্রিম ও শুকনা হরুদের ব্যবসার জন্য সম্পদ প্রদান করা হয়েছে। পূনর্বাসন কর্মসূচিতে চা দোকানের সম্পদ পাওয়া আনোয়ার বেগম (৫৭) জানান, তার অন্ধ স্বামী আব্দুল ৩০/৩৫ বছর ধরে ভিক্ষা করত। সে আর ভিক্ষা করবে না, চায়ের দোকান দিয়ে সংসার চালাবে। সে উপজেলার হাজিরবাগ ইউনিয়নের ইস্তা গ্রামের বাসিন্দা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here