চিকিৎসা সামগ্রী ।। ব্যয়ের বোঝা কমিয়ে আনুন

0
262

রোগীকে এখন ওষুধের সঙ্গে নানা রকমের চিকিৎসা সামগ্রী ও ডিভাইস কিনতে হচ্ছে। গত ৪ জুন সমকাল এসব পণ্যের বাজারের এক চিত্র তুলে ধরেছে। ‘চিকিৎসক- ব্যবসায়ী মিলেমিশে বাণিজ্য’ শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়_ বিদেশ থেকে আমদানি করা ৩০ টাকার স্যালাইন ১১০ থেকে ১১৫ টাকা, ৫ টাকার ইনসুলিন সিরিঞ্জ ১০ থেকে ১৫ টাকা, ১৫ টাকার ব্লাড ট্রান্সফিউশন সেট ৭৫ থেকে ৮০ টাকা এবং ৮ টাকার আইভি ক্যানোলা ১৫ থেকে ৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতিবেদনে ‘চিকিৎসক-ব্যবসায়ী মিলেমিশে বাণিজ্য’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। চিকিৎসকদের সহায়তা ছাড়া যে এ বাণিজ্য সম্ভব নয়, তা সহজেই বোধগম্য। নিশ্চয়ই সব চিকিৎসকের ক্ষেত্রে এটি প্রযোজ্য নয়। তবে চিকিৎসকদের একাংশের যে পদস্খলন ঘটেছে, তা আর অবিশ্বাস করার জো নেই। এমন অনেক চিকিৎসক আছেন, যারা ঔষধ কোম্পানির কাছ থেকে বখরা খেয়ে যথেচ্ছ ওষুধ দেন। আবার অপ্রয়োজনীয় এক গাদা টেস্ট লিখে দেন_ বিনিময়ে প্যাথলজিক্যাল ক্লিনিক থেকে কমিশন গ্রহণ করেন। সরকারি হাসপাতাল থেকে কৌশলে নিজের বেসরকারি হাসপাতালে রোগী পাঠান। সরকারি হাসপাতালের পরিবর্তে বেসরকারি হাসপাতালে পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য পাঠান। এখন দেখা যাচ্ছে_ সিরিঞ্জ থেকে হার্টের স্টান্ট, পেসমেকার, চোখের লেন্স ইত্যাদির সরবরাহক ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে কমিশন নিচ্ছেন এক শ্রেণির চিকিৎসক। যাদের এসব দেখভাল করার কথা, কমিশনের টাকা হয়তো তাদের অনেকের পকেটস্থ হচ্ছে। তাই হয়তো তারা চোখ বুজে আছেন। তবে কি যারা ভূত তাড়াবেন, ভূত তাদের কারও কারও ঘাড়ে আছর করেছে। তা না হলে এভাবে কোনো পণ্যের দাম চার-পাঁচগুণ বাড়িয়ে দেওয়া কি সম্ভব? আমরা এ ব্যাপারে আইনের কঠোর প্রয়োগ চাই। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, ঔষধ প্রশাসনের কাছ থেকে সক্রিয় ও কার্যকর ভূমিকা প্রত্যাশা করি। সরকার হার্টের স্টান্ট, চোখের লেন্সসহ কিছু চিকিৎসা সামগ্রীর মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছে। এটি প্রশংসনীয় পদক্ষেপ। একইভাবে বিদেশ থেকে আমদানি করা সব চিকিৎসা সামগ্রী ও ডিভাইসের দাম নির্ধারণ করে দেওয়া জরুরি মনে করি। এসব পণ্যের গায়ে দাম লেখাও বাধ্যতামূলক করতে হবে, যাতে ক্রেতারা প্রতারিত না হয়। এ ক্ষেত্রে চিকিৎসকদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। চিকিৎসার ক্ষেত্রে সব অনিয়ম ও দুর্নীতি রোধে তারা এগিয়ে আসবেন, রোগীর পাশে থাকবেন, সেবার ধর্ম সমুন্নত রাখবেন_ সেটিই প্রত্যাশিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here