তৃপ্তিকে নিয়ে যশোরের শার্শা বিএনপি বিভক্ত

0
275

নিজস্ব প্রতিবেদক : ওয়ান ইলেভেনে বিএনপির সংস্কারপন্থী হিসেবে পরিচিত সাবেক কেন্দ্রীয় দপতর সম্পাদক মফিকুল হাসান তৃপ্তিকে দলে ফেরানো নিয়ে যশোরের শার্শা বিএনপিতে দ্বিধা-বিভক্তি শুরু হয়েছে।

যশোরের শার্শা উপজেলা বিএনপির একাংশ তৃপ্তিকে ঠেকাতে মরিয়া। তারা সংবাদ সম্মেলন করে দাবি জানিয়েছেন, তৃপ্তিকে দলে ফেরানো হলে তৃণমূল ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তবে তৃপ্তিপন্থীরা তাকে স্বাগত জানাতে উদগ্রীব হয়ে আছে।

সংস্কারপন্থী হিসেবে পরিচিত শার্শার সন্তান মফিকুল হাসান তৃপ্তিকে ঘিরে বিএনপির তৃণমূলের রাজনীতিতে নতুন মেরুকরণ শুরু হয়েছে।

সম্প্রতি বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া সংস্কারপন্থীদের দলে ফেরানোর আভাস দেয়ায় শার্শা বিএনপিতে এই দ্বিধা-বিভক্তি শুরু হয়।

তৃপ্তিকে ঠেকাতে বুধবার দুপুরে যশোর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছে শার্শা উপজেলা ও বেনাপোল পৌর বিএনপি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে শার্শা উপজেলা বিএনপির সভাপতি খায়রুজ্জামান মধু ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান জহির দাবি করেন, ওয়ান ইলেভেনের অন্যতম সংস্কারপন্থী ছিলেন বিএনপির বহিষ্কৃত সাবেক দফতর সম্পাদক মফিকুল হাসান তৃপ্তি।

২০০৮ সালে বিএনপিকে ধ্বংস ও ওয়ান ইলেভেন সরকারের স্বার্থ রক্ষার জন্য বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটিকে অবৈধ ঘোষণা দিয়ে মিডিয়াতে বিবৃতি প্রদান করেন।

দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। এরপর তিনি জিয়া পরিবার ও দলের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হন।

এদিকে মফিকুল হাসান তৃপ্তির অনুসারীরা বলছেন, দলের চেয়ারপার্সন বিএনপিকে শক্তিশালী করতে সংস্কারপন্থী হিসেবে পরিচিত নেতাদের দলে ফেরানোর আভাস দিয়েছেন। নেত্রীর উদ্যোগকে তারা স্বাগত জানান। ভুল ভ্রান্তি ক্ষমা করে দিয়ে দলে ফেরানো হলে বিএনপি আরও শক্তিশালী হবে। শার্শার মানুষ মফিকুল হাসান তৃপ্তিকে স্বাগত জানাতে উদগ্রীব হয়ে আছে।

সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে শার্শা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান জহির বলেন, মফিকুল হাসান তৃপ্তির দলের ফেরায় ভয় পাচ্ছি না। তার মতো নেতা না থাকলেও বিএনপি চলবে। যুগে যুগে নেতা তৈরি হয়। কারো জন্য নেতৃত্ব বসে থাকে না।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে শার্শা উপজেলা বিএনপির সভাপতি খায়রুজ্জামান মধু বলেন, কোনো নেতার ইন্ধনে সংবাদ সম্মেলন করতে আসিনি। আমরা নিজের স্বপ্রণোদিত হয়ে সংবাদ সম্মেলন করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here