যশোরে প্রতিবেশীর হাত থেকে নিরাপত্তা চেয়ে প্রবাসীর স্ত্রী’র সংবাদ সন্মেলন

0
224

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রতিবেশী ইয়াছিন মোল্যা গং কতৃক অপহরন ও মিথ্যা মামলা সহ নানা অত্যাচার নির্যাতনের হাত থেকে রেহায় পেতে যশোর বাঘারপাড়া উপজেলার হিংগারপাড়া গ্রামের মৃত ওমর আলী বিশ্বাসের মেয়ে ও মাগুরা জেলার বড় ষোলই গ্রামের প্রবাসী সাজ্জাদ হোসেনের স্ত্রী রুমিচা পারভিন বুধবার দুপুর ১২টায় প্রেসক্লাব যশোরে এক সংবাদ সন্মেলন করেছে।

সংবাদ সম্নেলনে লিখিত বক্তব্যে রুমিচা পারভিন জানান, তার শ্বশুর বাড়ী মাগুরা জেলার বড় ষোলই গ্রামে। ২০১১সালে স্বামী সাজ্জাদ মালোসিয়া যায়। পুর্বশত্রতার জের ধরে প্রতিহিংসায় একই এলাকার প্রতিবেশী ইয়াছিন মোল্যা গং রুমিচা পারভিনকে নানা ভাবে নির্যাতন করত। উপাই নাদেখে স্বামি শ্বশুরের পরামর্শে রুমিচা যশোর উপশর এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থাকতেন। এরপর রুমিচা সহ স্বামি সাজ্জাদ, চাচাত ভাই কবির হোসেন, বড়ভাই মোস্তফার নামে মাগুরা সদর আমলী আদালতে ইয়াছিন মোল্যা ২০১৬ সালে জিআর-৯৪/১৬নম্বর মিথ্যা মামলা দেয়। মামলায় আদালতে হাজিরা দিয়ে ফেরার পথে ইয়াছিন মোল্যা গং রুমিচাকে অপহরন করে। তাতে রুমিচার ভাই মিরাজ বাদি হয়ে একই আদালতে মামলা করে।
২৪ জুলাই ২০১৭ ওই মামলায় হাজিরা দিয়ে ফেরার পথে আড়পাড়া বাজারে পৌছুলে ইয়াছিন মোল্যা, ফিরোজ মোল্যা, হোসেন মোল্যা, জাহিদা খাতুন ও লালমনি সহ অজ্ঞাত ১০/১২জন সন্ত্রাসী রুমিচাকে আবার অপহরন করে। এবং তিন ঘন্টা আটকে রেখে বিভিন্ন কাগজ পত্রে স্বাক্ষর করিয়ে নেয়।
এরপর শালিখা থানা পুলিশের সহযোগিতায় অপহরন কারি ইয়াসিন মোল্যা আটক সহ তাকে উদ্ধার করে বলে রুমিচা পারভিন সংবাদ সন্মেলনে বলেন।
রুমিচা পারভিন আরো বলেন এসময় শালিখা থানা পুলিশ অপহরন মামলা করতে চাইলে প্রথমে আশ্বস্হ করলেও পরে অপহরনকারিদের আতাতে তা নিজেরা মিমাংসার কথা বলেন। সেখান থেকে ফিরে ২৬জুলাই যশোর কোতয়ালী থানায় ১৬৫৪ নম্বর সাধারন ডাইরী করেন।

এখন ইয়াসিন মোল্য্যা গং এর হাত থেকে অপহরন ও মিথ্যা মামলা সহ নানান অত্যাচার অপহরনের হাত থেকে রেহায় পেতে তিনি এসংবাদ সন্মেলন করেছেন।

সংবাদ সন্মেলনে উপস্হিত ছিলেন, ভাই মিরাজ, চাচাত ভাই মানিক হোসেন ও বোনের মেয়ে রেহানা খাতুন প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here